ফখর জামানকে চালাকি করে ২০০ করতে না দেওয়ায় আইসিসি বড় শাস্তি দিলো ডি কককে

রানের জন্য দৌড়াচ্ছেন ব্যাটসম্যান ফখর জামান। এমন সময় দক্ষিণ আফ্রিকার উইকেট কিপার কুইন্টন ডি কক এমন ভান করে বসলেন যাতে ব্যাটসম্যানের মনে বলের অবস্থান নিয়ে ভ্রান্তি সৃষ্টি হলো।

আউট হয়ে গেলেন ১৯৩ রানে পিচে থাকা ফখর। ক্রিকেটীয় ভাষায় একে বলা হয়ে থাকে ফেক ফিল্ডিং। আর এই ফেক ফিল্ডিংয়ে আউট নিয়ে রীতিমত তোলপাড় শুরু হয়েছে ক্রিকেট বিশ্বে।

আর আইসিসির নিয়মনীতিতে এই অপরাধ তাইতো ডিককে সাজা দল আইসিসি। রবিবার (৪ এপ্রিল) সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে দারুণ খেলতে থাকা ফখর জামানকে ফেক ফিল্ডিংয়ের সহায়তা নিয়ে আউট করেন ডি কক।

আর তারপর থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় উঠে। প্রশ্ন তুলেন ডি ককের স্পোর্টসম্যানশীপ নিয়েও।

মাঠে প্রতিপক্ষকে হারিয়ে সিরিজে সমতা আনলেও ম্যাচ শেষে বড় অঙ্কের জরিমানা গুণতে হয়েছে ডি কককে। তাকে ম্যাচ ফি’র ৭৫ শতাংশ জরিমানা করেছে আইসিসি।

স্পোর্টসম্যানশিপ নিয়ে প্রশ্ন ওঠার পাশাপাশি প্রোটিয়া অধিনায়ক টেম্বা বাভুমাও পেয়েছেন আইসিসির শাস্তি। তাকে ম্যাচ ফি’র ২৫ শতাংশ জরিমানা করা হয়েছে।

এদিন দল হারলেও পাক ওপেনার ফখর জামান ১৫৫ বলে ১৯৩ রান করেছিলেন ১৮টি চার ও ১০টি ছক্কার সাহায্যে।

উল্লেখ্য, ক্রিকেটের নিয়মকানুন প্রণয়ন করে থাকে যে এমসিসি, তাদের অনুমোদনেই ২০১৭ সালে আইসিসি ফেক ফিল্ডিংয়ে শাস্তির আইন পাস করে।

মাঠে ফেক ফিল্ডিংয়ের জন্য আম্পায়াররা ৫ রান জরিমানা করতে পারেন। যদিও দক্ষিণ আফ্রিকা-পাকিস্তান ম্যাচে ফেক ফিল্ডিং দৃষ্টি এড়িয়ে যায় আম্পায়ারদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *